ঢাকা ০২:২৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

রাজশাহীর পুঠিয়ার সাবেক ওসি সাকিলের জামিন আবেদন খারিজ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৭:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২২ ১৯ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রাজশাহী প্রতিনিধিঃ
দুর্নীতির মামলায় সাময়িক বরখাস্ত রাজশাহীর পুঠিয়া থানার ওসি সাকিল উদ্দিন আহমেদের জামিন প্রশ্নে জারি রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে চার মাসের মধ্যে মামলার তদন্ত করে শেষ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
মঙ্গলবার (১ ফেব্রয়ারি) বিচারপতি মোঃ নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ এ রায় দেন।
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক আজ শুনানিতে বলেন, সাকিল উদ্দিন ওসি প্রদীপের (সিনহা হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি) মতো ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। আসামিদের বাঁচানোর উদ্দেশ্যে কারসাজি করে মামলার এজাহার পাল্টে ফেলেছেন।
এদিকে সাকিল উদ্দিনের আইনজীবী এমকে রহমান জামিন না হলে অন্তত স্ট্যান্ড ওভার রাখার আবেদন করেন। এ সময় আদালত বলেন, গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। চার মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ করার নির্দেশ দিচ্ছি।
গত বছরের ২৪ জানুয়ারি দুদক ওই মামলা করে। প্রাথমিক তথ্য বিবরণীতে আসামির নাম ও ঠিকানা সম্বলিত কলামে অজ্ঞাতনামা লিখে মামলা করার অভিযোগ আনা হয় দুদকের মামলায়। হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুসারে গত ১২ ডিসেম্বর রাজশাহীর বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে হাইকোর্টে আবেদন করেন সাকিল। ১৫ ডিসেম্বর তাঁর জামিন প্রশ্নে রুল জারি করা হয়। ওই রুল আজ মঙ্গলবার খারিজ করে দিলেন হাইকোর্ট।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

রাজশাহীর পুঠিয়ার সাবেক ওসি সাকিলের জামিন আবেদন খারিজ

আপডেট সময় : ০৪:০৭:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২২

রাজশাহী প্রতিনিধিঃ
দুর্নীতির মামলায় সাময়িক বরখাস্ত রাজশাহীর পুঠিয়া থানার ওসি সাকিল উদ্দিন আহমেদের জামিন প্রশ্নে জারি রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে চার মাসের মধ্যে মামলার তদন্ত করে শেষ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
মঙ্গলবার (১ ফেব্রয়ারি) বিচারপতি মোঃ নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ এ রায় দেন।
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক আজ শুনানিতে বলেন, সাকিল উদ্দিন ওসি প্রদীপের (সিনহা হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি) মতো ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। আসামিদের বাঁচানোর উদ্দেশ্যে কারসাজি করে মামলার এজাহার পাল্টে ফেলেছেন।
এদিকে সাকিল উদ্দিনের আইনজীবী এমকে রহমান জামিন না হলে অন্তত স্ট্যান্ড ওভার রাখার আবেদন করেন। এ সময় আদালত বলেন, গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। চার মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ করার নির্দেশ দিচ্ছি।
গত বছরের ২৪ জানুয়ারি দুদক ওই মামলা করে। প্রাথমিক তথ্য বিবরণীতে আসামির নাম ও ঠিকানা সম্বলিত কলামে অজ্ঞাতনামা লিখে মামলা করার অভিযোগ আনা হয় দুদকের মামলায়। হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুসারে গত ১২ ডিসেম্বর রাজশাহীর বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে হাইকোর্টে আবেদন করেন সাকিল। ১৫ ডিসেম্বর তাঁর জামিন প্রশ্নে রুল জারি করা হয়। ওই রুল আজ মঙ্গলবার খারিজ করে দিলেন হাইকোর্ট।