ঢাকা ০২:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

রাজশাহীতে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা; ওয়াকিটকিসহ প্রতারক আটক!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:১৩:৫৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ মার্চ ২০২২ ২২ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রাজশাহীতে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা; ওয়াকিটকিসহ প্রতারক আটক!

এম এম মামুন, রাজশাহী ব্যুরো:
রাজশাহীতে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা; ওয়াকিটকিসহ প্রতারক আটক! রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের এসআই পরিচয়ে টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ১ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে আরএমপিথর রাজপাড়া থানা পুলিশ। এসময় গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির কাছ থেকে ৩ টি ওয়াকিটকি সেট, ১ টি চার্জার, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত আসামি মোঃ জাকির হোসেন (৫২) নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার হলুদঘর গ্রামের মোঃ সুরমান আলীর ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজিজুর রহমানের রাজশাহী মহানগরীর বিনোদপুর চৌদ্দপাই (বিহাস গেট) এলাকায় খান অটো এন্ড ব্যাটারী হাউজ নামের একটি দোকান রয়েছে। গত ২৪ মার্চ বেলা ১১ টায় আজিজুর রহমানের দোকানে এক ব্যক্তি নিজেকে রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইন্সে কর্মরত পুলিশের এসআই মোঃ মোজাহার বলে পরিচয় দিয়ে বলে, পুলিশ লাইন্সে অনেক পরিত্যাক্ত গাড়ির পুরাতন ব্যাটারী রয়েছে। সেগুলো ১২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হবে। এখন ৫০ হাজার টাকা দিয়ে পুলিশ লাইন্স থেকে ব্যাটারী গুলো বুঝে নিয়ে অবশিষ্ট টাকা বিকেলে দিলে হবে বলে জানায়।

এ কথা শুনে আজিজুর রহমান তার দোকানের মিস্ত্রী মোঃ আমিনুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকাসহ অটোরিক্সা যোগে তার সাথে পুলিশ লাইন্সে পাঠান। এসআই পরিচয়দানকারী আসামী সিএন্ডবির মোড়ে পৌঁছিয়ে কৌশলে আমিনুলের কাছ থেকে তার মোবাইল নম্বর ও টাকা নিয়ে সেখানে নামিয়ে দেয়। সেখানে আমিনুলকে দাঁড়াতে বলে সে এসপি স্যারের কাছ ভাউচার নিয়ে আসি বলে সাহেব বাজারের দিকে চলে যায়। কিছুক্ষণ পর প্রতারক মোবাইল করে আমিনুলকে পুলিশ লাইন্সের গেটে যেতে বলে। আমিনুল কথামত পুলিশ লাইন্সের গেটে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। পরে তাকে না পেয়ে মোবাইল নম্বরে ফোন দিলে মোবাইল বন্ধ পায়।
আমিনুল ইসলাম বিষয়টি আজিজুর রহমানকে অবহিত করলে সে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারে, এসআই পরিচয়দানকারী আসামী মোজাহার আরো অনেকের সাথে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। উক্ত অভিযোগে প্রেক্ষিতে রাজপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু হয়।

মামলা রুজু পরবর্তীতে উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) জনাব মোঃ সাজিদ হোসেনের তত্বাবধানে রাজপাড়া থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম আসামীর নাম ঠিকানা সনাক্তপূর্বক গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেন।

পরবর্তীতে গতকাল ২৫ মার্চ রাত পৌনে ১১ টায় আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহকারি পুলিশ কমিশনার জনাব উৎপল কুমার চৌধুরী পিপিএম ও তার দলের দেয়া তথ্য প্রযুক্তি বিশ্লেষণ এবং সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের সার্বিক দিক নির্দেশনায় এসআই কাজল কুমার নন্দী ও তার টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার হলুদঘর গ্রামের বাড়ী হতে আসামী মোঃ জাকির হোসেন (৫২)কে গ্রেফতার করে।

এসময় আসামীর কাছ থেকে ৩ টি ওয়াকিটকি সেট, ১ টি চার্জার, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রাজশাহীতে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা; ওয়াকিটকিসহ প্রতারক আটক!

আপডেট সময় : ০৪:১৩:৫৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ মার্চ ২০২২

রাজশাহীতে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা; ওয়াকিটকিসহ প্রতারক আটক!

এম এম মামুন, রাজশাহী ব্যুরো:
রাজশাহীতে পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা; ওয়াকিটকিসহ প্রতারক আটক! রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের এসআই পরিচয়ে টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ১ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে আরএমপিথর রাজপাড়া থানা পুলিশ। এসময় গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির কাছ থেকে ৩ টি ওয়াকিটকি সেট, ১ টি চার্জার, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত আসামি মোঃ জাকির হোসেন (৫২) নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার হলুদঘর গ্রামের মোঃ সুরমান আলীর ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজিজুর রহমানের রাজশাহী মহানগরীর বিনোদপুর চৌদ্দপাই (বিহাস গেট) এলাকায় খান অটো এন্ড ব্যাটারী হাউজ নামের একটি দোকান রয়েছে। গত ২৪ মার্চ বেলা ১১ টায় আজিজুর রহমানের দোকানে এক ব্যক্তি নিজেকে রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইন্সে কর্মরত পুলিশের এসআই মোঃ মোজাহার বলে পরিচয় দিয়ে বলে, পুলিশ লাইন্সে অনেক পরিত্যাক্ত গাড়ির পুরাতন ব্যাটারী রয়েছে। সেগুলো ১২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হবে। এখন ৫০ হাজার টাকা দিয়ে পুলিশ লাইন্স থেকে ব্যাটারী গুলো বুঝে নিয়ে অবশিষ্ট টাকা বিকেলে দিলে হবে বলে জানায়।

এ কথা শুনে আজিজুর রহমান তার দোকানের মিস্ত্রী মোঃ আমিনুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকাসহ অটোরিক্সা যোগে তার সাথে পুলিশ লাইন্সে পাঠান। এসআই পরিচয়দানকারী আসামী সিএন্ডবির মোড়ে পৌঁছিয়ে কৌশলে আমিনুলের কাছ থেকে তার মোবাইল নম্বর ও টাকা নিয়ে সেখানে নামিয়ে দেয়। সেখানে আমিনুলকে দাঁড়াতে বলে সে এসপি স্যারের কাছ ভাউচার নিয়ে আসি বলে সাহেব বাজারের দিকে চলে যায়। কিছুক্ষণ পর প্রতারক মোবাইল করে আমিনুলকে পুলিশ লাইন্সের গেটে যেতে বলে। আমিনুল কথামত পুলিশ লাইন্সের গেটে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। পরে তাকে না পেয়ে মোবাইল নম্বরে ফোন দিলে মোবাইল বন্ধ পায়।
আমিনুল ইসলাম বিষয়টি আজিজুর রহমানকে অবহিত করলে সে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারে, এসআই পরিচয়দানকারী আসামী মোজাহার আরো অনেকের সাথে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। উক্ত অভিযোগে প্রেক্ষিতে রাজপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু হয়।

মামলা রুজু পরবর্তীতে উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) জনাব মোঃ সাজিদ হোসেনের তত্বাবধানে রাজপাড়া থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম আসামীর নাম ঠিকানা সনাক্তপূর্বক গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেন।

পরবর্তীতে গতকাল ২৫ মার্চ রাত পৌনে ১১ টায় আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহকারি পুলিশ কমিশনার জনাব উৎপল কুমার চৌধুরী পিপিএম ও তার দলের দেয়া তথ্য প্রযুক্তি বিশ্লেষণ এবং সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের সার্বিক দিক নির্দেশনায় এসআই কাজল কুমার নন্দী ও তার টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার হলুদঘর গ্রামের বাড়ী হতে আসামী মোঃ জাকির হোসেন (৫২)কে গ্রেফতার করে।

এসময় আসামীর কাছ থেকে ৩ টি ওয়াকিটকি সেট, ১ টি চার্জার, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।