ঢাকা ০৫:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

রশিদা পারভিনের মুখে এখন তৃপ্তির হাসি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৬:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১ ২৮৫ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নলডাঙ্গা (নাটোর) প্রতিনিধিঃ
নাটোরের নলডাঙ্গা থানা পুলিশের মানবিক সহযোগিতায় বিধবা ভাতার টাকা ফিরিয়ে এনে তুলে দেওয়া হয়েছে, বিধবা নারী মোছাঃ রশিদা পারভিনের(৫৪) হাতে। রশিদা পারভিনের বাড়ি নলডাঙ্গা উপজেলার নলডাঙ্গা পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড পূর্ব ব্রহ্মপুর গ্রামে।
নলডাঙ্গা থানা সূত্রে জানা যায়, ৪৫শ টাকা(বিধবা ভাতার) নম্বরের ভুলে একজনের বিকাশ নম্বরে চলে যায়। নলডাঙ্গা থানার চৌকস অফিসার এএসআই আমজাদ হোসেন অনেক চেষ্টা করে টাকাগুলো উদ্ধার করেন।
শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে উদ্ধারকৃত বিধবা ভাতার ৪৫শ টাকা রশিদা পারভিনের হাতে তুলে দেয় নলডাঙ্গা থানা পুলিশ। বিধবা ভাতার টাকা ফেরত পেয়ে রশিদা পারভিনের মুখে এখন তৃপ্তির হাসি।
নলডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম বলেন, সর্বোচ্চ চেষ্টা ও মানবিক দ্বায়বদ্ধতা থেকেই আমরা এই টাকাগুলো উদ্ধার করতে পেরেছি। সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে যেকোন সমস্যা সমাধানে নলডাঙ্গা থানা পুলিশ সকলের পাশে থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

রশিদা পারভিনের মুখে এখন তৃপ্তির হাসি

আপডেট সময় : ০৪:০৬:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১

নলডাঙ্গা (নাটোর) প্রতিনিধিঃ
নাটোরের নলডাঙ্গা থানা পুলিশের মানবিক সহযোগিতায় বিধবা ভাতার টাকা ফিরিয়ে এনে তুলে দেওয়া হয়েছে, বিধবা নারী মোছাঃ রশিদা পারভিনের(৫৪) হাতে। রশিদা পারভিনের বাড়ি নলডাঙ্গা উপজেলার নলডাঙ্গা পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড পূর্ব ব্রহ্মপুর গ্রামে।
নলডাঙ্গা থানা সূত্রে জানা যায়, ৪৫শ টাকা(বিধবা ভাতার) নম্বরের ভুলে একজনের বিকাশ নম্বরে চলে যায়। নলডাঙ্গা থানার চৌকস অফিসার এএসআই আমজাদ হোসেন অনেক চেষ্টা করে টাকাগুলো উদ্ধার করেন।
শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে উদ্ধারকৃত বিধবা ভাতার ৪৫শ টাকা রশিদা পারভিনের হাতে তুলে দেয় নলডাঙ্গা থানা পুলিশ। বিধবা ভাতার টাকা ফেরত পেয়ে রশিদা পারভিনের মুখে এখন তৃপ্তির হাসি।
নলডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম বলেন, সর্বোচ্চ চেষ্টা ও মানবিক দ্বায়বদ্ধতা থেকেই আমরা এই টাকাগুলো উদ্ধার করতে পেরেছি। সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে যেকোন সমস্যা সমাধানে নলডাঙ্গা থানা পুলিশ সকলের পাশে থাকবে।