ঢাকা ০৬:২০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

প্রাণঘাতি ব্যধিতে আক্রান্ত গৃহবধু; আলোর ভবিষ্যত এখন অন্ধকার!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৪৮:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২১ ৩৮ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

খলিল মাহমুদ, সিংড়া প্রতিনিধিঃ
সুস্থ সবল স্বাভাবিক একজন মানুষ অথচ ভাগ্যের নির্মম পরিহাস এখন তাকে কখনো বাড়িতে কখনো হাসপাতালের বেডে শুয়ে বসে কাটাতে হচ্ছে মাসের পর মাস, প্রানঘাতি এক ব্যাধি হয়ে সে আজ সর্বসময়, চার মাস আগে হঠাৎ করেই পেটে ব্যাথা শুরু হয়, তারপর দিন দিন পেটে ব্যাথার প্রকপ বেড়ে যায় ও জ্বালা যন্ত্রণা অস্থির হয়ে পরে।
এমতাঅবস্থায় নাটোরে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হয় এবং বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার রিপোর্টে দেখে ধরা পরে প্রসাবে ইনফেকশন, পরবর্তীতে রাজশাহীতে দফায় দফায় বেশ কয়েকজন সার্জারী বিশেষজ্ঞ কে দেখালে তারা সবাই একই উক্তি প্রকাশ করেন। সর্বশেষ (রামেক) হাসপাতালে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ও বিভাগীয় প্রধান ডাঃ অসীম কুমার ঘোষ এর পরামর্শ অনুযায়ী রোগী চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে, বর্তমানে ধীরে ধীরে নিস্তেজ হয়ে পড়ছে শরীর। দিন যত যাচ্ছে চলা ফেরা করার সক্ষমতা হারিয়ে যাচ্ছে। এমনি খাওয়া দাওয়া ও ঠিকমত করতে পারছে না।
জানা যায়, মরনব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত গৃহবধু আলো বেগম নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের ভাগনাগরকান্দী গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস এর মেজ ছেলে আঃ রশিদের স্ত্রী। আলোর স্বামী পেশায় দিনমজুর, তারা পারিবারিক ভাবে অসচ্ছল তার মধ্য দিয়ে পাত কাটায়, কিন্তু কোন দিন তারা কারো কাছে চিকিৎসা জন্য সাহায্য চায়নি, এমতাবস্থায় ক্যান্সারে আক্রান্ত গৃহবধূ আলোর চিকিৎসা করাতে গিয়ে বর্তমানে তাদের পরিবারের অবস্থা শোচনীয় হয় পড়েছে।
ক্যান্সারে আক্রান্ত গৃহবধূর মামা টুটুল সরদার জানান, তাদের পরিবারে মোট ছয় জন সদস্য, পরিবারে উপার্জনক্ষম ব্যাক্তি মাত্র দুইজন
ক্যান্সারে আক্রান্ত আলোর গর্ভের তিন বছরের একটা বাচ্চা আছে, বাচ্চাটির মা অসুস্থ হওয়ার কারনে মায়ের বুকের দুধ পান করতে পারে না।
তিনি আরো বলেন, ক্যান্সারে আক্রান্ত আলো বেগম কে চিকিৎসা করাতে আমাদের অনেক অর্থের প্রয়োজন, আমরা বর্তমানে তার চিকিৎসা করাতে গিয়ে অনেকটাই নিঃস্ব হয়েছি তাই সমাজের বিত্তবান, স্হানীয় জনপ্রতিনিধি সহ সবার কাছে আমার আকুল আবেদন আমার ভাগ্নীর চিকিৎসার জন্য সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবেন।
ক্যান্সারে আক্রান্ত আলো বেগম বলেন, মাননীয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক
এমপি মহোদয়ের কাছে আমার আকুল আবেদন আমার এই দুর্দিনে এবং আমার তিন বছরের সন্তানের ভবিষ্যত, এমনকি আমার চিকিৎসার জন্য যেন মন্ত্রী মহোদয় আমার পাশে থেকে সার্বিক ভাবে সহযোগিতা করেন।
এতো সুখের সংসারে জীবন যাপন করা গৃহবধূ আলোর স্বপ্নের সারথি কি আমরা হতে পারি না? বর্তমানে অসহায় এই পরিবারে অর্থের যোগান দিতে হিসশিম খাচ্ছে তার দিনমজুর স্বামী আঃ রশিদ ও ভ্যানচালক পিতা সাইফুল ইসলাম সহ তার পরিবার চিকিৎসা করাতে উভয় দিশেহারা হয়ে পড়েছে। আসুন মানবতার আমরা মানবতার পাশে দাঁড়াই, সবাই মিলে আর্থিক সহযোগিতা করি যাতে আলোর চিকিৎসা করে সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে। আলোর বিকাশ নাম্বার দেওয়া হলো আপনিরা অবশ্যই এই নম্বরে সাধ্যমত বিকাশ করতে পারবেন। (০১৭৪০-১১৭০০০) টুটুল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

প্রাণঘাতি ব্যধিতে আক্রান্ত গৃহবধু; আলোর ভবিষ্যত এখন অন্ধকার!

আপডেট সময় : ০১:৪৮:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২১

খলিল মাহমুদ, সিংড়া প্রতিনিধিঃ
সুস্থ সবল স্বাভাবিক একজন মানুষ অথচ ভাগ্যের নির্মম পরিহাস এখন তাকে কখনো বাড়িতে কখনো হাসপাতালের বেডে শুয়ে বসে কাটাতে হচ্ছে মাসের পর মাস, প্রানঘাতি এক ব্যাধি হয়ে সে আজ সর্বসময়, চার মাস আগে হঠাৎ করেই পেটে ব্যাথা শুরু হয়, তারপর দিন দিন পেটে ব্যাথার প্রকপ বেড়ে যায় ও জ্বালা যন্ত্রণা অস্থির হয়ে পরে।
এমতাঅবস্থায় নাটোরে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হয় এবং বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার রিপোর্টে দেখে ধরা পরে প্রসাবে ইনফেকশন, পরবর্তীতে রাজশাহীতে দফায় দফায় বেশ কয়েকজন সার্জারী বিশেষজ্ঞ কে দেখালে তারা সবাই একই উক্তি প্রকাশ করেন। সর্বশেষ (রামেক) হাসপাতালে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ও বিভাগীয় প্রধান ডাঃ অসীম কুমার ঘোষ এর পরামর্শ অনুযায়ী রোগী চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে, বর্তমানে ধীরে ধীরে নিস্তেজ হয়ে পড়ছে শরীর। দিন যত যাচ্ছে চলা ফেরা করার সক্ষমতা হারিয়ে যাচ্ছে। এমনি খাওয়া দাওয়া ও ঠিকমত করতে পারছে না।
জানা যায়, মরনব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত গৃহবধু আলো বেগম নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের ভাগনাগরকান্দী গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস এর মেজ ছেলে আঃ রশিদের স্ত্রী। আলোর স্বামী পেশায় দিনমজুর, তারা পারিবারিক ভাবে অসচ্ছল তার মধ্য দিয়ে পাত কাটায়, কিন্তু কোন দিন তারা কারো কাছে চিকিৎসা জন্য সাহায্য চায়নি, এমতাবস্থায় ক্যান্সারে আক্রান্ত গৃহবধূ আলোর চিকিৎসা করাতে গিয়ে বর্তমানে তাদের পরিবারের অবস্থা শোচনীয় হয় পড়েছে।
ক্যান্সারে আক্রান্ত গৃহবধূর মামা টুটুল সরদার জানান, তাদের পরিবারে মোট ছয় জন সদস্য, পরিবারে উপার্জনক্ষম ব্যাক্তি মাত্র দুইজন
ক্যান্সারে আক্রান্ত আলোর গর্ভের তিন বছরের একটা বাচ্চা আছে, বাচ্চাটির মা অসুস্থ হওয়ার কারনে মায়ের বুকের দুধ পান করতে পারে না।
তিনি আরো বলেন, ক্যান্সারে আক্রান্ত আলো বেগম কে চিকিৎসা করাতে আমাদের অনেক অর্থের প্রয়োজন, আমরা বর্তমানে তার চিকিৎসা করাতে গিয়ে অনেকটাই নিঃস্ব হয়েছি তাই সমাজের বিত্তবান, স্হানীয় জনপ্রতিনিধি সহ সবার কাছে আমার আকুল আবেদন আমার ভাগ্নীর চিকিৎসার জন্য সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবেন।
ক্যান্সারে আক্রান্ত আলো বেগম বলেন, মাননীয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক
এমপি মহোদয়ের কাছে আমার আকুল আবেদন আমার এই দুর্দিনে এবং আমার তিন বছরের সন্তানের ভবিষ্যত, এমনকি আমার চিকিৎসার জন্য যেন মন্ত্রী মহোদয় আমার পাশে থেকে সার্বিক ভাবে সহযোগিতা করেন।
এতো সুখের সংসারে জীবন যাপন করা গৃহবধূ আলোর স্বপ্নের সারথি কি আমরা হতে পারি না? বর্তমানে অসহায় এই পরিবারে অর্থের যোগান দিতে হিসশিম খাচ্ছে তার দিনমজুর স্বামী আঃ রশিদ ও ভ্যানচালক পিতা সাইফুল ইসলাম সহ তার পরিবার চিকিৎসা করাতে উভয় দিশেহারা হয়ে পড়েছে। আসুন মানবতার আমরা মানবতার পাশে দাঁড়াই, সবাই মিলে আর্থিক সহযোগিতা করি যাতে আলোর চিকিৎসা করে সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে। আলোর বিকাশ নাম্বার দেওয়া হলো আপনিরা অবশ্যই এই নম্বরে সাধ্যমত বিকাশ করতে পারবেন। (০১৭৪০-১১৭০০০) টুটুল।