ঢাকা ১১:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

নাটোরে সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত মামলায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:২২:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ অগাস্ট ২০২২ ১২ বার পড়া হয়েছে

রোকনুজ্জামান রোকন সহ-সভাপতি নাটোর জেলা ছাত্রলীগ

আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নাটোরে সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত মামলায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার!

নাটোর প্রতিনিধিঃ
নাটোরে সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত মামলায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার! ৫০০০ টাকার সাপ্তাহিক সুদ ৫০০ টাকা। সপ্তাহে সুদের কিস্তির ৫০০ টাকা না দেয়ায় মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করা হয় সাত্তার সরকার নামে সুদ গ্রহিতাকে। আব্দুর সাত্তার বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
গত ২৫ আগষ্ট এই মারপিটের ঘটনা ঘটে। এদিকে এই সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত ও মারপিটের অভিযোগে আব্দুস সাত্তারের ছেলে মোঃ সাব্বির বাদি হয়ে ছাত্রলীগ নেতা রোকন সহ দুই জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৪জনকে অভিযুক্ত করে সদর থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় শুক্রবার রাতে নাটোর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকনকে গ্রেফতার করা হয়।

নাটোর সদর থানায় দায়ের করা এজাহার সুত্রে জানাযায়, নাটোর সদর উপজেলার গোয়ালডাঙ্গা চাইপাড়া গ্রামের ভ্যারাইটি ব্যবসায়ী সাত্তার সরকার (৪০) তার ব্যবসার প্রয়োজন হলে তিন মাস আগে পাশের করোটা গ্রামের রোকনুজ্জামান রোকনের কাছে সুদের ওপর ৫হাজার টাকা ধার নেয়। সাত্তার সরকার শর্ত অনুযায়ী ওই টাকার সাপ্তাহিক সুদ হিসেবে ৫০০ টাকা করে প্রদান করতে থাকেন।সাত্তার সরকার যতদিন ওই ৫০০০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে পারবেননা ততদিন তাকে প্রতি সপ্তাহে ৫০০ টাকা করে সুদ দিতে হবে। গত ২৫ আগষ্ট রাত ৮ টার দিকে সাত্তার সরকারের কাছে ওই সুদের টাকা নিতে আসে অপর সুদ ব্যবসায়ী করোটা গ্রামের সেলিম মিস্ত্রির ছেলে মোঃ শিমুল (২৫)। হাতে টাকা না থাকায় অপরগতা জানালে শিমুল তাকে গালমন্দ করতে থাকে। এসময় সাত্তার তাকে গালমন্দ না করার জন্য অনুরোধ করতে থাকেন। কিন্তু শিমুল কোন কথায় শুনতে চায়না। ফোন করে রোকনকে এলাকায় আসতে বলে সে। একটি মাইক্রেবাস ও দু’টি মোটর সাইকেলে রোকন তার সঙ্গি সহ সাত্তার সরকারের দোকানে আসে। এসময় শিমুল সহ সকলেই সাত্তার সরকারের ওপর চড়াও হয়ে মারপিট করতে থাকে। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে সাত্তার সরকারের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে এবং তার দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। হামলাকারীরা দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় বলে এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে। স্থানীয়রা আহত সাত্তার সরকারকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় সাত্তার সরকারের ছেলে মোঃ সাব্বির বাদি হয়ে পরদিন থানায় একটি এজাহার দাখিল করেন।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহিন বলেন, তারা রোকনুজ্জামানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ খতিয়ে দেখছেন। বিষয়টি নিয়ে সংগঠনের জেলা সভাপতি ফরহাদ-বিন আজিজের সাথে কথা বলেছি। তদন্ত সাপেক্ষে যদি অভিযোগ প্রমানিত হয় তবে রোকনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
নাটোর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাছিম আহমেদ ছাত্রলীগ নেতা রোকনুজ্জামানকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত ও মারপিট মামলায় রোকনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

নাটোরে সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত মামলায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার!

আপডেট সময় : ০১:২২:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ অগাস্ট ২০২২

নাটোরে সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত মামলায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার!

নাটোর প্রতিনিধিঃ
নাটোরে সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত মামলায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার! ৫০০০ টাকার সাপ্তাহিক সুদ ৫০০ টাকা। সপ্তাহে সুদের কিস্তির ৫০০ টাকা না দেয়ায় মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করা হয় সাত্তার সরকার নামে সুদ গ্রহিতাকে। আব্দুর সাত্তার বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
গত ২৫ আগষ্ট এই মারপিটের ঘটনা ঘটে। এদিকে এই সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত ও মারপিটের অভিযোগে আব্দুস সাত্তারের ছেলে মোঃ সাব্বির বাদি হয়ে ছাত্রলীগ নেতা রোকন সহ দুই জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৪জনকে অভিযুক্ত করে সদর থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় শুক্রবার রাতে নাটোর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকনকে গ্রেফতার করা হয়।

নাটোর সদর থানায় দায়ের করা এজাহার সুত্রে জানাযায়, নাটোর সদর উপজেলার গোয়ালডাঙ্গা চাইপাড়া গ্রামের ভ্যারাইটি ব্যবসায়ী সাত্তার সরকার (৪০) তার ব্যবসার প্রয়োজন হলে তিন মাস আগে পাশের করোটা গ্রামের রোকনুজ্জামান রোকনের কাছে সুদের ওপর ৫হাজার টাকা ধার নেয়। সাত্তার সরকার শর্ত অনুযায়ী ওই টাকার সাপ্তাহিক সুদ হিসেবে ৫০০ টাকা করে প্রদান করতে থাকেন।সাত্তার সরকার যতদিন ওই ৫০০০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে পারবেননা ততদিন তাকে প্রতি সপ্তাহে ৫০০ টাকা করে সুদ দিতে হবে। গত ২৫ আগষ্ট রাত ৮ টার দিকে সাত্তার সরকারের কাছে ওই সুদের টাকা নিতে আসে অপর সুদ ব্যবসায়ী করোটা গ্রামের সেলিম মিস্ত্রির ছেলে মোঃ শিমুল (২৫)। হাতে টাকা না থাকায় অপরগতা জানালে শিমুল তাকে গালমন্দ করতে থাকে। এসময় সাত্তার তাকে গালমন্দ না করার জন্য অনুরোধ করতে থাকেন। কিন্তু শিমুল কোন কথায় শুনতে চায়না। ফোন করে রোকনকে এলাকায় আসতে বলে সে। একটি মাইক্রেবাস ও দু’টি মোটর সাইকেলে রোকন তার সঙ্গি সহ সাত্তার সরকারের দোকানে আসে। এসময় শিমুল সহ সকলেই সাত্তার সরকারের ওপর চড়াও হয়ে মারপিট করতে থাকে। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে সাত্তার সরকারের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে এবং তার দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। হামলাকারীরা দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় বলে এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে। স্থানীয়রা আহত সাত্তার সরকারকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় সাত্তার সরকারের ছেলে মোঃ সাব্বির বাদি হয়ে পরদিন থানায় একটি এজাহার দাখিল করেন।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহিন বলেন, তারা রোকনুজ্জামানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ খতিয়ে দেখছেন। বিষয়টি নিয়ে সংগঠনের জেলা সভাপতি ফরহাদ-বিন আজিজের সাথে কথা বলেছি। তদন্ত সাপেক্ষে যদি অভিযোগ প্রমানিত হয় তবে রোকনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
নাটোর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাছিম আহমেদ ছাত্রলীগ নেতা রোকনুজ্জামানকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সুদ ব্যবসা সংক্রান্ত ও মারপিট মামলায় রোকনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।