ঢাকা ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাঘাইছড়িতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ডাম্প ট্রাক খাদে, ৬ শ্রমিক নিহত, আহত ৮! শেরপুর জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা শেষে কমিটি ঘোষণা! কাটাখালীতে মাদক বিক্রয় ও সেবনের অপরাধে গ্রেফতার-৪! শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে হিট স্ট্রোকে এক ব্যক্তির মৃত্যু! লালপুরে ট্রাকের পেছনে সিএনজির ধাক্কা, সিএনজি চালক নিহত! সিংড়া উপজেলা স্বেচ্চঅসেবক লীগ সভাপতি ও সম্পাদককে অব্যাহতি! গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ! রাণীশংকৈলে ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তার এক কাপ চায়ের দাম ৫শ টাকা, ভিডিও ভাইরাল! বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান হলেন অপহরণ হওয়া দেলোয়ার! বাঘায় ১৬১ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক কারবারী গ্রেফতার!

নাটোরের দুই উপজেলার বিএনপির ১১ নেতা-কর্মী কারাগারে!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:২৬:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১১ বার পড়া হয়েছে

নাটোরে নাশকতার দুটি পৃথক মামলায় বিএনপির ১১ জন কারাগারে

আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নাটোরের দুই উপজেলার বিএনপির ১১ নেতা-কর্মী কারাগারে!

বিশেষ প্রতিনিধি নাটোরঃ
নাটোরে নাশকতা ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের দুটি পৃথক মামলায় লালপুর ও বাগাতিপাড়া উপজেলার বিএনপির ১১ জন নেতা কর্মিকে কারাগারে প্রেরন করেছেন আদালত। মামলার অভিযুক্তরা গত ১৯ ফেব্রুয়ারী নাটোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অম্লান কুসুম জিষ্ণুর আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানালে বিচারক বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী শুনানীর দিন ধার্য করেন। শুনানী শেষে বিচারক তাদের জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

নাটোর জজ কোর্টের পিপি সিরাজুল ইসলাম জানান, গত বছরের ২৯ অক্টোবর জেলার লালপুরে ৫ জনের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে এবং একই দিন বাগাতিপাড়া থানায় বিস্ফোরক সহ বিশেষ ক্ষমতা আইনে ৬ জনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা হয়। ওই মামলার অভিযুক্তরা উচ্চ আদালত থেকে জামিনে ছিল। অভিযুক্তরা গত ১৯ ফেব্রুয়ারী নাটোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে নতুন করে জামিনের আবেদন করেন। বিচারক ২২ ফেব্রুয়ারী শুনানীর দিন ধার্য করেন। শুনানী শেষে বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন। মামলার আসামীরা সকলেই বিএনপি রাজনীতির সাথে জড়িত।

জেলা বিএনপির সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ বলেন, লালপুর ও বাগাতিপাড়ায় দুটি মিথ্যা মামলায় দুই উপজেলার বিএনপির শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে আসামী করা হয়। ওই মামলা দায়েরের পর হাইকোর্ট থেকে জামিনে ছিলেন সকলেই। গত ২০ ফেব্রুয়ারী তাদের জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের দিন নাটোর আদালতে হাজির হয়ে নতুন করে জামিনের আবেদন জানান তারা। আদালত তাদের জামিন প্রার্থনা না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দিয়েছেন।

বাগাতিপাড়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন, সদস্য সচিব হাফিজুর রহমান, যুগ্ম আহবায়ক নেকবর হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক তোফাজ্জল হোসেন মিঠু, থানা যুবদলের আহ্বায়ক হারুনুর রশিদ দুলাল ও যুগ্ম আহ্বায়ক আবু রায়হান এবং লালপুর উপজেলার গোপালপুর পৌর বিএনপির আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম মোলাম, এবি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবেদ আলী মন্ডল, বিলমাড়িয়া ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য মেহেদী হাসান আরিফ ও গোপালপুর পৌর ছাত্রদল আহ্বায়ক লুৎফর রহমান মাফিকে মামলায় আসামী করে কারাগরে প্রেরন করা হয়েছে।

এদিকে আসামী পক্ষে শুনানীতে অংশ নেয়া সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি ফারজানা পারভিন পুতুল বলেন, উচ্চ আদালত থেকে জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার একদিন আগেই নতুন করে জামিনের আবেদন জানানো হয়। বিচারক দু’দিন পর শুনানীর দিন ধার্য করে কালক্ষেপন করেছেন। পৃথক এই দুটি মামলায় ইতিপুর্বে প্রায় ১৭ জনকে নিন্ম আদালত থেকে জামিন দেয়া হয়েছে। যে ১১জন উচ্চ আদালত থেকে জামিনে ছিলেন তাদেরই পরবর্তী জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অথচ মামলায় কারো কোন পার্ট প্লে উল্লেখ নাই। শুধু মাত্র হয়রানি করার জন্যই এই মিথ্যা মামলা করা হয়েছে বিএনপি নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে। তিনি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন জানাবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

নাটোরের দুই উপজেলার বিএনপির ১১ নেতা-কর্মী কারাগারে!

আপডেট সময় : ১২:২৬:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নাটোরের দুই উপজেলার বিএনপির ১১ নেতা-কর্মী কারাগারে!

বিশেষ প্রতিনিধি নাটোরঃ
নাটোরে নাশকতা ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের দুটি পৃথক মামলায় লালপুর ও বাগাতিপাড়া উপজেলার বিএনপির ১১ জন নেতা কর্মিকে কারাগারে প্রেরন করেছেন আদালত। মামলার অভিযুক্তরা গত ১৯ ফেব্রুয়ারী নাটোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অম্লান কুসুম জিষ্ণুর আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানালে বিচারক বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী শুনানীর দিন ধার্য করেন। শুনানী শেষে বিচারক তাদের জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

নাটোর জজ কোর্টের পিপি সিরাজুল ইসলাম জানান, গত বছরের ২৯ অক্টোবর জেলার লালপুরে ৫ জনের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে এবং একই দিন বাগাতিপাড়া থানায় বিস্ফোরক সহ বিশেষ ক্ষমতা আইনে ৬ জনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা হয়। ওই মামলার অভিযুক্তরা উচ্চ আদালত থেকে জামিনে ছিল। অভিযুক্তরা গত ১৯ ফেব্রুয়ারী নাটোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে নতুন করে জামিনের আবেদন করেন। বিচারক ২২ ফেব্রুয়ারী শুনানীর দিন ধার্য করেন। শুনানী শেষে বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন। মামলার আসামীরা সকলেই বিএনপি রাজনীতির সাথে জড়িত।

জেলা বিএনপির সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ বলেন, লালপুর ও বাগাতিপাড়ায় দুটি মিথ্যা মামলায় দুই উপজেলার বিএনপির শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে আসামী করা হয়। ওই মামলা দায়েরের পর হাইকোর্ট থেকে জামিনে ছিলেন সকলেই। গত ২০ ফেব্রুয়ারী তাদের জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের দিন নাটোর আদালতে হাজির হয়ে নতুন করে জামিনের আবেদন জানান তারা। আদালত তাদের জামিন প্রার্থনা না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দিয়েছেন।

বাগাতিপাড়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন, সদস্য সচিব হাফিজুর রহমান, যুগ্ম আহবায়ক নেকবর হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক তোফাজ্জল হোসেন মিঠু, থানা যুবদলের আহ্বায়ক হারুনুর রশিদ দুলাল ও যুগ্ম আহ্বায়ক আবু রায়হান এবং লালপুর উপজেলার গোপালপুর পৌর বিএনপির আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম মোলাম, এবি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবেদ আলী মন্ডল, বিলমাড়িয়া ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য মেহেদী হাসান আরিফ ও গোপালপুর পৌর ছাত্রদল আহ্বায়ক লুৎফর রহমান মাফিকে মামলায় আসামী করে কারাগরে প্রেরন করা হয়েছে।

এদিকে আসামী পক্ষে শুনানীতে অংশ নেয়া সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি ফারজানা পারভিন পুতুল বলেন, উচ্চ আদালত থেকে জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার একদিন আগেই নতুন করে জামিনের আবেদন জানানো হয়। বিচারক দু’দিন পর শুনানীর দিন ধার্য করে কালক্ষেপন করেছেন। পৃথক এই দুটি মামলায় ইতিপুর্বে প্রায় ১৭ জনকে নিন্ম আদালত থেকে জামিন দেয়া হয়েছে। যে ১১জন উচ্চ আদালত থেকে জামিনে ছিলেন তাদেরই পরবর্তী জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অথচ মামলায় কারো কোন পার্ট প্লে উল্লেখ নাই। শুধু মাত্র হয়রানি করার জন্যই এই মিথ্যা মামলা করা হয়েছে বিএনপি নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে। তিনি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন জানাবেন।