ঢাকা ০১:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

দুই কৃষকের আত্মহত্যার তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৮:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ এপ্রিল ২০২২ ১৮ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দুই কৃষকের আত্মহত্যার তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল

এম এম মামুন, রাজশাহী ব্যুরো:
দুই কৃষকের আত্মহত্যার তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল। রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় দুই সাঁওতাল কৃষকের আত্মহত্যার ঘটনায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের গঠন করা তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দাখিল করেছে। রোববার বিকালে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সায়েদুল ইসলামের কাছে এ প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তদন্ত কমিটি।
কমিটির প্রধান কৃষি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (সার ব্যবস্থাপনা ও মনিটরিং) মোঃ আবু জুবাইর হোসেন বাবলু সোমবার দুপুরে বলেন, আমি তদন্ত প্রতিবেদন দিয়ে দিয়েছি। ওখানে আমরা বেশকিছু অনিয়ম পেয়েছি। পানি দেওয়ার ক্ষেত্রে কোন রেজিস্টার মেইনটেইন করা হয় না। তদারকির অভাব ছিল। আমরা এগুলোই প্রতিবেদনে লিখে কিছু ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশসহ সচিব স্যারকে দিয়েছি।
তবে দুই কৃষক কেন বিষপান করেছিলেন সে বিষয়ে প্রতিবেদনে লেখা হয়নি বলে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির প্রধান।

তিনি বলেন, এটা তো পোস্টমর্টেম রিপোর্ট ছাড়া বলা যায় না। আমরা বলতে পারি না। পোস্টমর্টেম রিপোর্ট আসার পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা হবে। তবে দুজনের পরিবার যে অভিযোগ করছে সেটা আমাদের প্রতিবেদনে আছে। পাশাপাশি এলাকার অন্য কৃষকদেরও বক্তব্য আছে।

গত ২৩ মার্চ গোদাগাড়ীর নিমঘুটু গ্রামের সাঁওতাল কৃষক অভিনাথ মারান্ডি (৩৭) ও তার চাচাতো ভাই রবি মারান্ডি (২৭) বিষপান করেন। এতে দুজনেই মারা যান। পরিবারের দাবি, বিএমডিএথর গভীর নলকূপের অপারেটর ও ওয়ার্ড কৃষকলীগের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন এ দুই কৃষককে বোরো ধানের জমিতে পানি না দিয়ে বিষ খেতে বলেছিলেন। এ নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা হয়। তখন তোলপাড় শুরু হলে গত ২৭ মার্চ কৃষি মন্ত্রণালয় একটি তদন্ত কমিটি করে। ২৯ মার্চ কমিটির সদস্যরা সরেজমিনে তদন্ত করে যান। সেই তদন্তেরই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। এদিকে ২ এপ্রিল দিবাগত রাতে পুলিশ সাখাওয়াতকে গ্রেপ্তার করে। পরদিন ৩ এপ্রিল বিএমডিএ সাখাওয়াতকে চাকরিচ্যুত করে। এ দিন সাখাওয়াতকে আদালতে হাজির করে পুলিশ তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। আদালত সাখাওয়াতকে কারাগারে পাঠালেও সেদিন রিমান্ড আবেদনের শুনানি হয়নি।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি হতে পারে।
এদিকে ঘটনা তদন্তে বিএমডিএও আলাদা একটি তদন্ত কমিটি করেছিল। সেই প্রতিবেদনের সুপারিশের ভিত্তিতেই রোববার গভীর নলকূপ অপারেটর সাখাওয়াতকে স্থায়ী বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএমডিএথর নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশীদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

দুই কৃষকের আত্মহত্যার তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল

আপডেট সময় : ০৪:০৮:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ এপ্রিল ২০২২

দুই কৃষকের আত্মহত্যার তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল

এম এম মামুন, রাজশাহী ব্যুরো:
দুই কৃষকের আত্মহত্যার তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল। রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় দুই সাঁওতাল কৃষকের আত্মহত্যার ঘটনায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের গঠন করা তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দাখিল করেছে। রোববার বিকালে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সায়েদুল ইসলামের কাছে এ প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তদন্ত কমিটি।
কমিটির প্রধান কৃষি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (সার ব্যবস্থাপনা ও মনিটরিং) মোঃ আবু জুবাইর হোসেন বাবলু সোমবার দুপুরে বলেন, আমি তদন্ত প্রতিবেদন দিয়ে দিয়েছি। ওখানে আমরা বেশকিছু অনিয়ম পেয়েছি। পানি দেওয়ার ক্ষেত্রে কোন রেজিস্টার মেইনটেইন করা হয় না। তদারকির অভাব ছিল। আমরা এগুলোই প্রতিবেদনে লিখে কিছু ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশসহ সচিব স্যারকে দিয়েছি।
তবে দুই কৃষক কেন বিষপান করেছিলেন সে বিষয়ে প্রতিবেদনে লেখা হয়নি বলে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির প্রধান।

তিনি বলেন, এটা তো পোস্টমর্টেম রিপোর্ট ছাড়া বলা যায় না। আমরা বলতে পারি না। পোস্টমর্টেম রিপোর্ট আসার পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা হবে। তবে দুজনের পরিবার যে অভিযোগ করছে সেটা আমাদের প্রতিবেদনে আছে। পাশাপাশি এলাকার অন্য কৃষকদেরও বক্তব্য আছে।

গত ২৩ মার্চ গোদাগাড়ীর নিমঘুটু গ্রামের সাঁওতাল কৃষক অভিনাথ মারান্ডি (৩৭) ও তার চাচাতো ভাই রবি মারান্ডি (২৭) বিষপান করেন। এতে দুজনেই মারা যান। পরিবারের দাবি, বিএমডিএথর গভীর নলকূপের অপারেটর ও ওয়ার্ড কৃষকলীগের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন এ দুই কৃষককে বোরো ধানের জমিতে পানি না দিয়ে বিষ খেতে বলেছিলেন। এ নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা হয়। তখন তোলপাড় শুরু হলে গত ২৭ মার্চ কৃষি মন্ত্রণালয় একটি তদন্ত কমিটি করে। ২৯ মার্চ কমিটির সদস্যরা সরেজমিনে তদন্ত করে যান। সেই তদন্তেরই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। এদিকে ২ এপ্রিল দিবাগত রাতে পুলিশ সাখাওয়াতকে গ্রেপ্তার করে। পরদিন ৩ এপ্রিল বিএমডিএ সাখাওয়াতকে চাকরিচ্যুত করে। এ দিন সাখাওয়াতকে আদালতে হাজির করে পুলিশ তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। আদালত সাখাওয়াতকে কারাগারে পাঠালেও সেদিন রিমান্ড আবেদনের শুনানি হয়নি।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি হতে পারে।
এদিকে ঘটনা তদন্তে বিএমডিএও আলাদা একটি তদন্ত কমিটি করেছিল। সেই প্রতিবেদনের সুপারিশের ভিত্তিতেই রোববার গভীর নলকূপ অপারেটর সাখাওয়াতকে স্থায়ী বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএমডিএথর নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশীদ।