ঢাকা ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সময় ও নম্বর কমে যাচ্ছে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৩২:০৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২ ১৯ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সময় ও নম্বর কমে যাচ্ছে

চ্যানেল এ, নিউজ ডেস্কঃ
চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সময় ও নম্বর কমে যাচ্ছে।
তিন ঘণ্টার পরিবর্তে পরিক্ষা নেয়া হবে দেড় ঘণ্টায়। পরীক্ষায় পূর্ণমান ১০০ নম্বরের পরিবর্তে নির্ধারিত থাকছে ৫০ নম্বর। তবে এবার সব বিষয়ে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের ওপর পরীক্ষা নেয়া হবে। ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা এবং আইসিটি বিষয় বাদ দিয়ে অন্যান্য বিষয়ের পরীক্ষা হতে পারে। এবার টেস্ট পরীক্ষা নেয়া হবে।

জানা গেছে, চলতি বছরের আগামী ১৯ মে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা এবং ১৮ জুলাই এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। তবে পরীক্ষার সময় ও নম্বর কমানো হবে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে শিক্ষা বোর্ডগুলোর এক ভার্চুয়াল সভায় সম্প্রতি এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে এসএসসি ও সমমানের টেস্ট পরীক্ষা ৩ এপ্রিলের মধ্যে শেষ করতে হবে। এসএসসির চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ১৯ মে। শেষ হবে ৯ জুন। এইচএসসি ও সমমানের টেস্ট পরীক্ষা শেষ করতে হবে ৭ জুনের মধ্যে। উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হবে ১৮ জুলাই। ৩১ আগস্ট শেষ হবে এই পরীক্ষা।

সভা সূত্রে আরও জানা যায়, এসএসসি-এইচএসসি ও সমমানে প্রতিটি বিষয়ে পরীক্ষার পূর্ণমান হবে ৫০ নম্বর। ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিট নির্ধারিত সময় থাকবে পরীক্ষার জন্য। এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় বাংলা ও ইংরেজি বিষয়ের নম্বর বণ্টনের ক্ষেত্রে বাংলা প্রথম পত্রে এমসিকিউ অংশে ২০ নম্বরে এবং লিখিত অংশে ৩০ নম্বরে পরীক্ষা নেওয়া হবে। বাংলা দ্বিতীয়পত্রে রচনামূলক অংশে ৫০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে দুই পাবলিক পরীক্ষায় বাংলা প্রথমপত্রে লিখিত অংশের ছয়টি প্রশ্নের মধ্যে যেকোনো তিনটির উত্তর দিতে হবে। যেসব বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা নেই সেগুলোর লিখিত অংশে ১১টি প্রশ্নের মধ্যে যেকোনো চারটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। ব্যবহারিক পরীক্ষা রয়েছে এমন বিষয়ে লিখিত অংশে আটটি প্রশ্নের মধ্যে যেকোনো তিনটির উত্তর দিতে হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওই সভায় এসএসসি-এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রমের ওপরও গুরুত্ব আরোপ করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সময় ও নম্বর কমে যাচ্ছে

আপডেট সময় : ০৩:৩২:০৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২

চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সময় ও নম্বর কমে যাচ্ছে

চ্যানেল এ, নিউজ ডেস্কঃ
চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সময় ও নম্বর কমে যাচ্ছে।
তিন ঘণ্টার পরিবর্তে পরিক্ষা নেয়া হবে দেড় ঘণ্টায়। পরীক্ষায় পূর্ণমান ১০০ নম্বরের পরিবর্তে নির্ধারিত থাকছে ৫০ নম্বর। তবে এবার সব বিষয়ে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের ওপর পরীক্ষা নেয়া হবে। ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা এবং আইসিটি বিষয় বাদ দিয়ে অন্যান্য বিষয়ের পরীক্ষা হতে পারে। এবার টেস্ট পরীক্ষা নেয়া হবে।

জানা গেছে, চলতি বছরের আগামী ১৯ মে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা এবং ১৮ জুলাই এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। তবে পরীক্ষার সময় ও নম্বর কমানো হবে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে শিক্ষা বোর্ডগুলোর এক ভার্চুয়াল সভায় সম্প্রতি এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে এসএসসি ও সমমানের টেস্ট পরীক্ষা ৩ এপ্রিলের মধ্যে শেষ করতে হবে। এসএসসির চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ১৯ মে। শেষ হবে ৯ জুন। এইচএসসি ও সমমানের টেস্ট পরীক্ষা শেষ করতে হবে ৭ জুনের মধ্যে। উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হবে ১৮ জুলাই। ৩১ আগস্ট শেষ হবে এই পরীক্ষা।

সভা সূত্রে আরও জানা যায়, এসএসসি-এইচএসসি ও সমমানে প্রতিটি বিষয়ে পরীক্ষার পূর্ণমান হবে ৫০ নম্বর। ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিট নির্ধারিত সময় থাকবে পরীক্ষার জন্য। এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় বাংলা ও ইংরেজি বিষয়ের নম্বর বণ্টনের ক্ষেত্রে বাংলা প্রথম পত্রে এমসিকিউ অংশে ২০ নম্বরে এবং লিখিত অংশে ৩০ নম্বরে পরীক্ষা নেওয়া হবে। বাংলা দ্বিতীয়পত্রে রচনামূলক অংশে ৫০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে দুই পাবলিক পরীক্ষায় বাংলা প্রথমপত্রে লিখিত অংশের ছয়টি প্রশ্নের মধ্যে যেকোনো তিনটির উত্তর দিতে হবে। যেসব বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা নেই সেগুলোর লিখিত অংশে ১১টি প্রশ্নের মধ্যে যেকোনো চারটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। ব্যবহারিক পরীক্ষা রয়েছে এমন বিষয়ে লিখিত অংশে আটটি প্রশ্নের মধ্যে যেকোনো তিনটির উত্তর দিতে হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওই সভায় এসএসসি-এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রমের ওপরও গুরুত্ব আরোপ করা হয়।